পুরনো চেহারায় রংপুর

রংপুর এখন পুরনো চেহারায় ফিরে এসেছে। করোনা সংকটকালে কেউ যেন সামাজিক দূরত্ব না মানার প্রতিযোগিতায় নেমেছে। রংপুরের হাট-বাজার ও বিপণিবিতানগুলো আংশিক খুলে দেয়া হয়েছে। এ সব হাট-বাজার ও বিপণিবিতানে লোকজন হুমড়ি খেয়ে পড়ছে। নগরীর ভেতর সড়কে রিকশা-অটোবাইকসহ বিভিন্ন যানবাহনের ভিড়ের কারণে মাঝে মধ্যে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সকাল থেকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বিভিন্ন যানবাহন নগরীর সড়কগুলোতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।

রংপুরে করোনা রোগীর সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। গত ১০ দিনে রংপুরে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪৪ জনে। এমন অবস্থার মধ্যেও নগরীর লোকজন কোনো রকমের সামাজিক দূরত্ব মানছে না। শহরের লোকজনের উপস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় সংক্রমণ বেশি হচ্ছে ফলে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন রংপুর সিভিল সার্জন হিরম্ব কুমার রায়। এ নিয়ে উৎকণ্ঠার কথাও বলেছেন জেলা প্রশাসক আসিব আহসান ও মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আব্দুল আলীম মাহমুদ।

কিন্তু তারা মনে করেন মানুষের রুটি রুজি এভাবে বন্ধ করে কতদিন ঘরে রাখা যাবে। সরকার সাধ্যমত খাদ্য সহায়তা দিচ্ছে কর্মহীন দুস্থ পরিবারগুলোর মাঝে। কিন্তু মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য কৃষি উৎপাদন স্থবির হয়ে গেছে। অর্থনৈতিক সচ্ছলতার জন্য জনগণকে সীমিত আকারে চলাফেরা ও বিপণী বিতান খুলে দেয়ার জন্য সরকার নির্দেশ দিয়েছে। প্রশাসনও সেভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

About admin

Check Also

লকডাউনে লঞ্চ মালিকদের ৩১০ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি

করোনাভাইরাস প্রকোপ রোধে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় লঞ্চ মালিকদের ৩১০ কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *